রিয়ালের সঙ্গে ৯ বছরের সম্পর্ক শেষ, রোনাল্ডোর খোলা চিঠি !

রিয়ালের সঙ্গে ৯ বছরের সম্পর্ক শেষ রোনাল্ডোর। রিয়াল মাদ্রিদের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা হয়ে গিয়েছে। ক্লাব সতীর্থরাও সোশ্যাল সাইটে তাঁকে বিদায় জানাতে শুরু করেছেন। বিদায়ী বার্তায় তখনই রোনাল্ডো বললেন “প্লিজ আমাকে বোঝার চেষ্টা করুন

কেন তিনি ক্লাব ছাড়লেন তার ব্যাখা নিজেই দিয়েছেন ক্রিশ্চিয়ানো। খোলা চিঠিতে সিআর সেভেন লিখেছেন, মাদ্রিদ শহর ও রিয়াল মাদ্রিদে কাটানো বছরগুলো সম্ভবত আমার জীবনের সবচেয়ে আনন্দের সময়। এই ক্লাব, ক্লাবের সমর্থক, এই শহরের প্রতি ভীষণ কৃতজ্ঞ। আমাকে তারা যেভাবে ভালোবেসেছে, আমার প্রতি যে আবেগ দেখিয়েছে, ধন্যবাদ দিলেও কম হয়ে যাবে।

আমি মনে করেছি, জীবনের নতুন ধাপে পা রাখার সময় হয়েছে। এ কারণই ক্লাবকে বলেছিলাম আমাকে চলে যাওয়ার অনুমতি দেওয়ার জন্য। সিদ্ধান্তটা কঠিন ছিল। আমি এর জন্য ক্ষমাপ্রার্থী। ক্লাবের সমর্থকদের অনুরোধ করব, দয়া করে আমাকে বোঝার চেষ্টা করুন। অসাধারণ ৯টি বছর কেটেছে এখানে। ৯টি অতুলনীয় বছর। জীবনের সবচেয়ে রোমাঞ্চকর ৯ বছর।

রিয়ালে আমি কঠিন সময়ও কাটিয়েছি, কারণ আমার ওপর তাদের অনেক প্রত্যাশা ছিল। আমি এটা নিয়ে সব সময়ই সচেতন ছিলাম। এখানে অসাধারণ ফুটবল যতটা উপভোগ করেছি, তা কখনও ভুলব না। ড্রেসিংরুম ও মাঠে অসাধারণ সব সঙ্গী পেয়েছি। দুর্দান্ত সব সমর্থকের যে আবেগ সেটা সব সময় টের পেয়েছি। এবং সবাই মিলে আমরা টানা তিনটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিতেছি এবং পাঁচ বছরে চারটি ট্রফি জিতেছি।

এখানে থেকেই ব্যক্তিগতভাবে ৪টি ব্যালন ডি’অর ও ৩টি গোল্ডেন বুট জিতেছি। এই সুবিশাল ও অসাধারণ এক ক্লাবে খেলেছি বলেই এত অর্জন আমার কেরিয়ারে। রিয়াল মাদ্রিদ আমার হৃদয়ে জায়গা করে নিয়েছে। আমার পরিবারের হৃদয়েও জায়গা করে নিয়েছে। আর এ কারণেই অন্য যে কোনও সময়ের চেয়েও বেশি করে বলতে চাই, ধন্যবাদ।

ক্লাব সভাপতিকে ধন্যবাদ, বোর্ডকে ধন্যবাদ, আমার সতীর্থদের ধন্যবাদ, সব কোচ, ফিজিও এবং ক্লাবের অসাধারণ সব কর্মীদেরও ধন্যবাদ, যাঁরা ক্লান্তিহীনভাবে সবকিছু সচল রাখছেন, ছোটখাটো সব বিষয়ে নজর রাখছেন। সব সমর্থক ও স্প্যানিশ ফুটবলের প্রতি আবারও অসংখ্য ধন্যবাদ। এই নয় বছরে আমি বিশ্বের সেরা কিছু খেলোয়াড়ের বিরুদ্ধেও খেলেছি। আমি তাদের প্রতি আমার সম্মান ও শ্রদ্ধা জানাচ্ছি।

আমি অনেক লম্বা সময় নিয়ে ভেবেছি এবং এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি যে, জীবনে নতুন কিছু শুরু করার সময় এসেছে। আমি এই জার্সি ছেড়ে যাচ্ছি। কিন্তু যেখানেই থাকি না কেন এই ক্লাব ও স্যান্তিয়াগো বার্নাব্যু আমার জীবনের অংশ হয়ে থাকবে। সবাইকে ধন্যবাদ। এই স্টেডিয়ামে ৯ বছর আগে প্রথমবার যেমন বলেছিলাম, হালা মাদ্রিদ!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*