শ্রাবন্তী,শাকিব খানের সঙ্গে সম্পর্কে রয়েছেন ,কৃষ্ণ ব্রজর সঙ্গে বিচ্ছেদ,

(ছবি জি২৪ঘণ্টা)

 রাজীব বিশ্বাসের সঙ্গে সেই ছোটবেলার প্রেম, তারপর বিয়ে। তাঁদের ঘর আলো করে আসে একমাত্র ছেলে অভিমন্যু ওরফে ঝিনুক। সেই দীর্ঘ ১১ বছরের বিবাহিত জীবনের পরও শেষপর্যন্ত বিয়েটা টেকেনি। ২০০৩ সালে শুরু হওয়া সম্পর্কের ইতি হয় ২০১৬ সালে এসে। তারপর অবশ্য মাঝে বহু জল গড়িয়েছে। শ্রাবন্তীর জীবনে এসেছিল নতুন প্রেম, মডেল কৃষ্ণ ব্রজ। তবে সে সম্পর্কটা ছিল নেহাতই ক্ষণিকের। মুম্বইয়ে ঘটা করে বাগদান অনুষ্ঠানের পর সে সম্পর্কও ভেঙে গেল। শ্রাবন্তী ও কৃষ্ণ ব্রজর সম্পর্ক ভাঙার খবর আসে তাঁর অভিনেত্রীর গত বছর শ্রাবন্তীর জন্মদিনের সময়। শোনা যায় মুম্বইয়ের সুপার মডেল কৃষ্ণকে বাংলা সিনেমায় লঞ্চ করার জন্য কিছু কম চেষ্টা করেননি শ্রাবন্তী। তবে কৃষ্ণ ব্রজ নাকি টাকা জোগাড় করতে পারেননি, সিনেমার জন্য, সে যাই হোক, ঠিক কী কারণে শ্রাবন্তী-কৃষ্ণের সম্পর্ক ভেঙে যায়, তা এখনও অজানাই। যদিও শ্রাবন্তী-কৃষ্ণ ব্রজর সম্পর্ক ভাঙার ঘটনায় টালিগঞ্জ ইন্ডাস্ট্রির অনেকেই শ্রাবন্তীর পক্ষই নেন।

সে যাই হোক, কৃষাণ ভিরাজের সঙ্গে সম্পর্ক ভাঙার পর তিনি নাকি ‘সিঙ্গল’, এমনটাই দাবি করে এসেছেন নায়িকা। যদিও টালিগঞ্জের স্টুডিও পাড়ায় কান পাতলে শোনা যাচ্ছে অন্যকথা। একই কথা শোনা যাচ্ছে বাংলাদেশের ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতেও। অনেকেই বলছেন বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনেতা শাকিব খানের সঙ্গে নাকি সম্পর্কে রয়েছেন অভিনেত্রী। প্রসঙ্গত, এই মুহূর্তে ‘শাকিবের সঙ্গে ‘ভাইজান এলো রে’ বলে একটি ছবিতে কাজ করছেন শ্রাবন্তী। লন্ডনে এই ছবির শ্যুটিং চলাকালীনই তাঁদের সম্পর্কের গুঞ্জন শোনা যায়। শোনা যায়, সিনেমায় একটি দৃশ্যের শ্যুটিংয়ের জন্য রোম্যান্টিক পোজ দিচ্ছিলেন শ্রাবন্তী-শাকিব। এই দৃশ্যটি শ্যুট হয়ে গেলেও তাঁরা নাকি দুজনে ওই একই ভাবে দাঁড়িয়ে থাকেন। আর এই দৃশ্যটি ইন্টারনেটে ভাইরাল হয়ে যাওয়ার পরই শ্রাবন্তী-শাকিবের সম্পর্ক নিয়ে গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে।

যদিও তাঁদের সম্পর্কের কথা পুরোপুরি অস্বীকার করেছেন শ্রাবন্তী। শাকিব খানও পুরো বিষয়টিই গুজব বলে এড়িয়ে গেছেন। তবে শুধুই শাকিব নন, কেউ কেউ তো বলছেন শ্রাবন্তী নাকি টালিগঞ্জের এক নায়কের সঙ্গেও প্রেম করছেন। যদিও তিনি কে, তা জানা যায়নি। তবে অনেকেই এবিষয়টি নেহাতই গুজব বলেই উড়িয়ে দিয়েছেন।

(সূত্রঃজি২৪ঘণ্টা)

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*