ধোনির ২০০ তম ওয়ানডে ম্যাচটা টাই হয়ে স্মরণীয় হয়ে থাকল।

এশিয়া কাপের সুপার ফোরে নিয়মরক্ষার ম্যাচে নাটকীয়তায় ভরা। দুই ম্যাচ জিতে আগেই প্রতিযোগিতার ফাইনালে উঠে গিয়েছিল ভারত। অন্যদিকে আগেই বিদায় নিয়েছিল আফগানিস্তান। সেই নিয়মরক্ষার ম্যাচটাই হয়ে গেল যেন বছরের অন্যতম সেরা উত্তেজক ম্যাচ। ম্যাচের শেষ ওভারে টান টান চিত্রনাট্য। এক রান করতে পারলেই জিতত ভারত। কিন্তু রশিদ খানের বলে রবীন্দ্র জাদেজা আউট হতেই ভারতের ইনিংস শেষ হয়ে যায়। আফগানিস্তানের ২৫২ রানের জবাবে, ২৫২ রানে অল আউট হল ভারতও। ফলে অধিনায়ক হিসেবে মহেন্দ্র সিং ধোনির কামব্যাক ম্যাচ জেতা হল না ভারতের। মাহির নেতৃত্বের ২০০ তম ম্যাচ টাই হল।

শেষ ওভারে জিততে হলে ভারতের প্রযোজন ছিল ৭ রান, হাতে একটি উইকেট। ব্যাটিং এন্ডে রবীন্দ্র জাদেজা আর খলিল আহমেদ তখন নন স্ট্রাইকিং এন্ডে। রশিদ খানের শেষ ওভারের প্রথম বলটা সিঙ্গলস নেওয়ার সুযোগ থাকলেও, রান নেননি জাদেজা। পরের বলেই বাউন্ডারি মারেন জাদেজা। তৃতীয় বলে সাহস করে সিঙ্গলস নিয়ে খলিলকে স্ট্রাইক দেন জাদেজা। ভারতকে জিততে হলে তখন করতে হত ৩ বলে ২ রান। খলিল কোনও রকমে এক রান নিয়ে ম্যাচ টাই করেন। জাদেজা স্ট্রাইকে আসায় মনে হয়েছিল ম্যাচটা সহজেই জিতে যাবে ভারত। কারণ তখনও বাকি ২ বল আর ভারতের প্রয়োজন ছিল মাত্র ১ রান। আর তখনই আফরাগ রূপকথার জন্ম দিলেন রশিদ খান। রশিদ খানের বলে জারদানের হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হয়ে গেলেন জাদেজা। ম্যাচ টাই হয়ে গেল। প্রথমবার একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ভারতকে হারাতে না পারলেও টাই করে চমকে দিল আফগানরা।

ম্যাচের নায়ক অবশ্য আফগান উইকেটকিপার মহম্মদ শাহজাদ। যিনি ১২৪ রানের দুরন্ত ইনিংস খেলে দলকে লড়াই করার মত জায়গায় নিয়ে যান। মঙ্গলবার দুবাইয়ে অধিনায়ক ধোনির মঞ্চ মাতিয়ে দিলেন আফগানিস্তানের উইকটকিপার-ব্যাটসম্যান মহম্মদ শাহজাদ। শাহজাদ ১১৬ বলে ১২৪ রানের ইনিংস খেলে চমকে দিলেন। তবে শাহজাদ ছাড়া টপ অর্ডারে আর কোনও আফগান ব্যাটসম্যান রান পেলেন না। সাত নম্বরে নেমে মহম্মদ নবি ৬৪ রানের ইনিংস খেলে দলের রানকে ২৫২ তে নিয়ে যান। ভুবি-বুমরার অনপুস্থিতিতে ভারতের অনভিজ্ঞ পেস বোলিং আক্রমণ দাগ কাটতে পারল না। তবে জাদেজা-কুলদীপ দারুণ বল করলেন। জাদেজা তিনটি ও কুলদীপ দুটি উইকেট নিলেন। একদিনের ক্রিকেটে অভিষেকে পেসার দীপক চাহার ৪ ওভারে ৩৭ রান দিয়ে নিলেন একটি উইকেট।

জয়ের জন্য ২৫৩ রান তাড়া করতে নেমে ভারতের নতুন ওপেনিং জুটি কে এল রাহুল-আম্বাতি রায়াড়ু জুটি দারুন শুরু করেন। ওপেনিং পার্টনারশিপে রাহুল-রায়াডু করেন ১১০ রান। রাহুল (৬০), রায়াডু (৫৭) আউট হতেই তাসের ঘরের মত ভেঙে পড়ে ভারতের ইনিংস। পরপর আউট হন ধোনি (৮), মনীশ পান্ডে (৮)। কেদার যাদব (১৯)রান আউট হতেই ভারত আরও চাপে পড়ে যায়। তিন নম্বরে নামা দীনেশ কার্তিক(৪৪)কিছুটা লড়াই করেন। ২০৫ রানে ৬ উইকেট হারায় ভারত। তখন মনে হচ্ছিল আফগানদের বিরুদ্ধে প্রথমবার হারের স্বাদ পেতে চলেছেন ধোনিরা। কিন্তু সেখান থেকে জাদেজার ২৫ রানের ইনিংস ভারতকে ম্যাচে ফেরালেও জেতাতে পারলেন না ধোনির ‘স্যার’ জাদেজা। ম্যাচ বাঁচাল ভারত, হৃদয় জিতল আফগানরা। ম্যাচের শুরুটা হয়েছিল চমক দিয়ে ক্যাপ্টেন কুলের কামব্যাক দিয়ে। অধিনায়ক হিসেবে মহেন্দ্র সিং ধোনির ২০০ তম ওয়ানডে ম্যাচটা টাই হয়ে স্মরণীয় হয়ে থাকল।

(সূত্রঃজি২৪ঘণ্টা)

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*