মাঝে মধ্যে গোসল না করা স্বাস্থ্যের পক্ষে ভাল! বলছে, বস্টন ইউনিভার্সিটির একদল গবেষক

শীতকাল মানেই অনিয়মিত গোসল । ঠান্ডার ভয়ে গোসল করতে ঢুকেও গায়ে পানি না ঢেলেই বেরিয়ে আসেন অনেকে। শীতকালে এই অনিয়মিত গোসল বিষয়ে অনেকেই খোলামেলা আলোচনা করেন না,… পাছে কেউ তা নিয়ে ঠাট্টা করে! আপনিও কি মাঝেমধ্যেই গোসলে ‘ফাঁকি’ দেন? তাহলে আর এ নিয়ে লজ্জা বা সংকোচের কিছু নেই। কারণ, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বস্টন ইউনিভার্সিটির একদল গবেষকদের মতে নিয়মিত গোসল না করাই ভাল।

এই মার্কিন গবেষকদের মতে, প্রতিদিন গোসল করলে ত্বকের বেশ ক্ষতি হতে পারে। মূলত শরীরের ময়লা, ঘাম ধুয়ে ফেলার জন্যই আমরা গোসল করে থাকি। তবে বিশেষজ্ঞদের দাবি, শরীরের ময়লা, ঘাম ধোয়ার সঙ্গে গোসলের কোনও সম্পর্ক নেই। একাধিক মার্কিন চর্মরোগ বিশেষজ্ঞদের মতে, প্রতিদিন গোসল করাটা অনেকটাই একটা সামাজিক রীতি বা অভ্যাস। এ ক্ষেত্রে তাঁদের যুক্তি হল, শরীরের নিজস্ব ক্রিয়াই ত্বককে ময়লা হওয়ার হাত থেকে রক্ষা করে। তবে তাই বলে গোসল একেবারে বন্ধ করার পক্ষেও কোনও যুক্তি দেখাননি তাঁরা।

বস্টন ইউনিভার্সিটির গবেষকদের মতে, শরীরে এমন কিছু ভাল ব্যাকটেরিয়া জন্মায় যা টক্সিনের হাত থেকে ত্বককে রক্ষা করে। প্রতিদিন গোসলের ফলে ভাল ব্যাকটেরিয়াগুলো শরীর থেকে ধুয়ে বেরিয়ে যায়। আর তাতে শরীরেরই ক্ষতি হয়। এ ছাড়াও নিয়মিত গোসলের ফলে নখের খুব ক্ষতি হয়। মার্কিন গবেষকদের মতে, গোসলের সময় নখ অতিরিক্ত পানি শোষণ করে ধীরে ধীরে দুর্বল হয়ে পড়ে।

সুতরাং, অনিয়মিত গোসল আসলে স্বাস্থ্যকর। তাই ঠান্ডায় দু’-একদিন গোসলে‘ডুব’ মারলে আর লজ্জা বা সংকোচের কিছু নেই!

(সূত্রঃজি২৪ঘণ্টা)

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*