পিরিয়ড কি? চলুন জানি,এবং কিশোরিদের যানাই,

পিরিয়ড কোন নিষিদ্ধ বিষয় না। নারী দেহের এক স্বাভাবিক প্রক্রিয়া এই পিরিয়ড। তাই পিরিয়ড নিয়ে জানায় কিংবা বলায় কোন সংকোচ থাকা উচিত নয়।

একজন নারীর দেহে কিছু টিস্যু যখন আর প্রয়োজন হয় না,তখন সেসব টিস্যু বিশেষ প্রক্রিয়ায় বের হয়ে যাওয়াই মাসিক বা পিরিয়ড নামে পরিচিত। এই টিস্যুগুলো আসে নারীর জরায়ু থেকে,যেখানে বাচ্চা (ভ্রুণ) মাতৃগর্ভে বড় হয়। প্রতি মাসেই নির্দিষ্ট এক সময়ে জরায়ু লাইন এগ ফার্টিলাইজ করার প্রস্তুতি হিসাবে পাতলা হতে থাকে। কিন্তু এই এগ যখন ফার্টিল হতে পারে না,তখন ওই লাইনিং রক্তের সাথে নারীর জরায়ু থেকে বের হয়ে যায়। প্রতি মাসে নারীদেহের এই বিশেষ প্রক্রিয়াকে মাসিক বা পিরিয়ড বলে।আরো সহজে বললে প্রতি মাসে মেয়েদের জরায়ু যে পরিবর্তনের মধ্যে দিয়ে যায় এবং প্রতিমাসে হরমোনের প্রভাবে মেয়েদের যোনিপথ দিয়ে যে রক্ত ও জরায়ু নিঃসৃত তরল পদার্থ বের হয়ে আসে, মাসিক বা ঋতুস্রাব বলে।

তাই যখন কোন নারীর মাসিক হয় তখন তিনি কেবলমাত্র কিছু রক্ত আর এমন কিছু টিস্যু যা তার আর প্রয়োজন নেই,সেসব দেহ থেকে বের করে দেন প্রাকৃতিক নিয়মেই। যখন কোন মেয়ে পূর্নবয়স্ক হয়ে ওঠেন,হয়ে ওঠেন প্রাকৃতিক ভাবে ম্যাচিউরড- তখন থেকেই এই শারিরীক প্রক্রিয়া প্রাকৃতিকভাবেই নিয়মিত হয়ে ওঠে তার জন্য।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*