এক প্যাকেট কন্ডোমের দাম ৭৫৫ থেকে ৮০০ মার্কিন ডলার।তা-ও কিনতে লম্বা লাইন!

সমস্যাটা দীর্ঘদিনের। বর্তমানে যা রীতিমতো মাথা ব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে দেশের লক্ষ লক্ষ মানুষের। কী সেই মাথা ব্যথার কারণ? সঙ্গম, যৌন জীবন। বিশ্বাস হচ্ছে না! হ্যাঁ, সঙ্গম বা যৌন সংসর্গে লিপ্ত হওয়ার আগে অন্তত দশবার ভাবতে হচ্ছে এ দেশের নাগরিকদের! ভেনিজুয়েলার কথা বলছি।

না, সঙ্গম, যৌন সংসর্গ বা স্বাভাবিক যৌন জীবনে কোনও রকম বাধা-নিষেধ নেই সে দেশে। তবে হ্যাঁ, গর্ভপাত করানো নিষিদ্ধ ভেনিজুয়েলায়। আর তাই সুরক্ষিত যৌন জীবন অত্যন্ত জরুরি ভেনিজুয়েলার নাগরিকদের কাছে। ভাবছেন, তাতে সমস্যা কোথায়! সমস্যা হল, বর্তমানে ভেনিজুয়েলায় কন্ডোম বা গর্ভনিরোধক ওষুধের দাম এখন আকাশ ছোঁয়া! সস্তার কন্ডোম কিনে অনাকাঙ্খিত গর্ভধারণের ঝুঁকি নিতে নারাজ সে দেশের তরুণ প্রজন্ম। আর ভাল মানের কন্ডোম মানেই তা বিদেশ থেকে আমদানি করা। ফলে সেগুলির দামও অনেক বেশি।

বিবিসি-তে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন অনুযায়ী, এক প্যাকেট কন্ডোমের দাম প্রায় ৭৫৫ থেকে ৮০০ মার্কিন ডলার। অর্থাত্, ভারতীয় মূদ্রায় যা প্রায় ৫৭ হাজার টাকা! গর্ভনিরোধক ওষুধের দামও কিছু কম নয়! তাই অপারগ হয়ে সোনা বা হিরের দামেই নিজেদের যৌন জীবন সুরক্ষিত করতে বাধ্য হচ্ছে ভেনিজুয়েলার মানুষ। লম্বা লাইন দিয়ে ‘আকাশ ছোঁয়া’ দামেই কিনছেন কন্ডোম বা গর্ভনিরোধক ওষুধ। কারণ, সস্তার গর্ভনিরোধক ব্যবস্থা মাঝ পথে ব্যর্থ হলে গর্ভধারণের একটা ঝুঁকি থেকেই যায়। আর একবার গর্ভধারণের পর গর্ভপাত করানোর কোনও উপায় নেই! কারণ, ভেনিজুয়েলায় গর্ভপাত করানো কঠোর শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

সুতরাং, হয় যৌন জীবনে অকাল অবসর, না হয় সোনার দামে কন্ডোম বা গর্ভনিরোধক ওষুধ কেনা ছাড়া ভেনিজুয়েলার নাগরিকদের কাছে আর কোনও উপায় নেই আপাতত!

(সূত্রঃজি২৪ঘণ্টা)

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*