ভারতের, হরিয়ানায়, লাউড স্পিকার-এর আওয়াজকে কেন্দ্র করে। মসজিদে হামলা, আক্রান্ত নামাজিরা,

আক্রান্তদের অভিযোগ, নমাজের সময় লাউড স্পিকার বন্ধ ছিল। তাছাড়া এমনিতেও লাউড স্পিকারের আওয়াজ কমানো থাকে। আক্রান্তদের দাবি, স্থানীয়রাই হামলায় যুক্                                                                                                           রমজান মাসে নমাজিদের ওপর হামলা হল হরিয়ানার করনালে। নমাজিদের মারধর ছাড়াও মসজিদের দেওয়াল ভেঙে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয়দের বিরুদ্ধে। অভিযোগ উঠেছে, লাউড স্পিকারের তার ছিঁড়ে দেওয়ার। নমাজিদের দামি, তাঁদের প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হয়েছে।

ঘটনা করনালের নেওয়াল গ্রামের। অভিযোগ, আজানের আওয়াজে অতিষ্ঠ হয়ে মসজিদে ঢুকে হামলা চালান স্থানীয়রা। ঘটনার পর থেকে হামলার শিকার হওয়া ব্যক্তিরা আতঙ্কে রয়েছেন। হামলার জেরে মাঝ পথেই নামাজ পড়া স্থগিত করে থানায় গিয়ে অভিযোগ জানান আক্রান্তরা। অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা দায়ের করেছে কুঞ্জপুরা থানার পুলিস।

আক্রান্তদের অভিযোগ, নমাজের সময় লাউড স্পিকার বন্ধ ছিল। তাছাড়া এমনিতেও লাউড স্পিকারের আওয়াজ কমানো থাকে। আক্রান্তদের দাবি, স্থানীয়রাই হামলায় যুক্ত। বলে রাখি, গত মাসেই হরিয়ানার গুরুগ্রামে নামাজ পড়া নিয়ে বিবাদ বাঁধে। স্থানীয়দের একাংশের অভিযোগ, প্রকাশ্য়ে রাস্তার পাশে নমাজ পড়ে জমি দখলের চেষ্টা চালাচ্ছে কিছু মানুষ। সেদিন ও্ নামাজিদের ওপর হামলা চালায় কয়েকজন যুবক। হামলার মুখে পিছু হঠেন নামাজিরা। ঘটনার ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*